98 Flavor Street, Boston, 02118

Open daily 10:00 am to 11:30 pm

প্রথম বারের জন্য বিদেশ যাত্রা: প্রাথমিক ধাপসমূহ এবং পরামর্শ

Blog

ভ্রমণ একমাত্র বিনিয়োগ যা আপনাকে আরো ধনী করে তুলবে। সেনেকার এই কথাটি আমাদের মনে করিয়ে দেয় জীবনে অর্থ-কড়িই সব না। জীবন তো কেবল উপভোগ করার জন্য, নতুন নতুন অভিজ্ঞতা তৈরির জন্য। তবে হ্যা, একজন মানুষ কীভাবে তার জীবন উপভোগ করছেন সেখানেই তৈরি হয় মানুষে মানুষে বিস্তর ফারাক। কেউ হয়তো বাসায় বসে ভ্রমণ কাহিনী পড়া উপভোগ করেন, কেউ হয়তো বেড়িয়ে পরতে চান দু’ চোখ ভরে পৃথিবীকে দেখার জন্য। 

ভ্রমণে বের হলে আপনার অর্থ ব্যয় তো হবেই কিন্তু আপনি হবেন অভিজ্ঞতা, (এবং) জ্ঞানের দিক দিয়ে সবার চেয়ে ধনী। আর তাই জীবনে অভিজ্ঞতা সঞ্চারের জন্য ভ্রমণের চেয়ে ভালো অপশন হয়তো আপনি খুব কমই পাবেন। 

হাজার হাজার মাইলের পথও শুরু হয় একটি মাত্র ধাপের মাধ্যমে। আর এই হাজার হাজার মাইল যদি হয় আপনার প্রথম বিদেশ যাত্রা তাহলে সেই ভ্রমনের সবটুকু স্বাদ এবং অভিজ্ঞতা নিংরে নিতে আপনার দরকার পূর্বপ্রস্তুতি। আপনি কোথায় ঘুরতে যাবেন, সঙ্গে কী কী নিবেন, কী কী পূর্ব পরিকল্পনা থাকলে আপনার প্রথম বিদেশ যাত্রা হতে পারে নির্ঝঞ্জাট এই সব নিয়েই আজকের লেখা। 

১. জেনে নিন ঘোরার জায়গা সম্পর্কে

প্রথম বিদেশ যাত্রা, এক্সাইটমেন্ট তো আছেই, সেই সাথে কাজ করে কিছুটা নার্ভাসনেস। খুব স্বাভাবিক। তবে এই নার্ভাসনেস কিছুটা কাটিয়ে উঠতে পারেন আপনার ঘুরতে যাওয়ার জায়গার ব্যাপারে মোটামুটি রিসার্চ করার মাধ্যমে। বেশি কিছু না। আপনার পছন্দের জায়গা সিলেক্ট করে ফেলুন। এবার সেই জায়গা সম্পর্কে কিছু সাধারণ তথ্য, কারেন্সি, কিছু বেসিক এটিকেটস, অল্প স্বল্প স্থানীয় ভাষা, পাব্লিক ট্রান্সপোর্টেশন ইত্যাদি। 

২. প্যাকিং করুন বুঝে শুনে

আপনার নিতান্ত প্রয়োজনীয় পোশাক, জুতা, প্রয়োজনীয় প্রসাধনী, প্রয়োজনীয় ঔষধ-পত্র গুছিয়ে নিতে পারেন। নিতে পারেন স্থানীয় আবহাওয়ার সাথে সহজে খাপ খায় এমন কোনো পোশাক। প্রয়োজনে সঙ্গে নিন আপনার ফোনের চার্জার, হেডফোন ইত্যাদি। 

৩. কিছু হিসাব নিকাশ সেড়ে নিন

আপনি ঠিক কতদিনের জন্য বিদেশ যাচ্ছেন তা আগেই ঠিক করে ফেলূন। ৫ দিন, ৭ দিন, ১ মাস, ৫ মাস যাই-ই হোক না কেন। বাজেট ট্রাভেল নাকি লাক্সারি ট্রাভেল তাও ঠিক করে ফেলুন। এসব ঠিক করা হয়ে গেলে এবার ঠিক করুন আপনার মোট কতো অর্থ খরচ হতে পারে ট্রিপটি সম্পন্ন করার জন্য। সেই হিসাবে একদিনে কতো খরচ তার একটা ধারণা পেয়ে যাবেন আপনি। 

৪. পাসপোর্ট সংক্রান্ত

প্ল্যানিং মোটামুটি হয়ে গেলে এবার আপনার পাসপোর্টটি চেক করে নিন। কিংবা আপনার যদি পাসপোর্ট না থাকে তবে পাসপোর্ট বানিয়ে নিন। এক মাসের মতো সময় লাগতে পারে পাসপোর্ট বানাতে। আর যদি পাসপোর্ট বানানো থাকে তবে চেক করুন আপনার পাসপোর্টের মেয়াদ আছে কিনা। মেয়াদ উত্তীর্ণ হলে রিনিউ করিয়ে নিন। 

৫. ভিসা সংক্রান্ত

আপনি যেই দেশে যাচ্ছেন সেই দেশের ভিসা সম্পর্কে ভালোভানে জেনে নিন। ভিসা পেতে কী কী শর্ত পূরণ করতে হয় জেনে নিন। বিভিন্ন দেশে ভ্রমণকারীদের জন্য ভিসার আলাদা কিছু শর্ত থাকে। এসব শর্ত জেনে নিয়ে ভিসার জন্য আ্যপ্লাই করুন।

৬. ট্রাভেল ক্রেডিট কার্ড

ভ্রমণের সময় যদি আপনি কিছু বোনাস পেতে চান তবে ট্রাভেল ক্রেডিট কার্ড হতে পারে আপনার অন্যতম সঙ্গী। ট্রাভেল ক্রেডিট কার্ড দিয়ে আপনি পেয়ে যেতে পারেন ফ্রি হোটেল চেক-ইন অথবা ফ্রি ফ্লাইট! এরকম আকর্ষনীয় ডিল পেতে হলে আপনি ট্রাভেল ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করতে পারেন। 

৭. ফ্লাইট বুক করুন

ভ্রমণের দিনক্ষণ ঠিক হয়ে গেলে আপনার নিকটস্থ ট্রাভেল এজেন্সি কিংবা সরাসরি আপনি ফ্লাইট বুক করে নিতে পারেন। আজকাল বেশ কিছু ট্রাভেল এজেন্সি আছে যারা আপনার সুবিধামতো ফ্লাইট বুক করে দিতে পারে। 

৮. আবাসন ব্যবস্থা

থাকার জন্য আপনি বেছে নিতে পারেন এমন একটি জায়গা যেখান থেকে আপনি খুব সহজে স্থানীয় লোকজনের জীবন যাত্রা উপভোগ করতে পারেন। তবে অবশ্যই তা নিরাপদ হতে হবে। শহরের কাছে অথবা শহর থেকে একটু দূরে নিরিবিলি পরিবেশ বেছে নিতে পারেন থাকার জন্য। প্রয়োজনীয় সুযোগ-সুবিধা সম্পর্কে জেনে নিন। 

৯. করতে পারেন ট্রাভেল ইন্স্যুরেন্স 

ভ্রমণের সময় কখন কোন বিপদ হয় বলা যায় না। তাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলা করার জন্য পূর্ব পরিকল্পনা রাখা। সেজন্য আপনি করতে পারেন ট্রাভেল ইন্স্যুরেন্স। কেননা হয়তো আপনার নিয়মিত ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি দেশের বাইরে সেবা প্রদান করেনা। তাই প্র‍য়োজন একটি ট্রাভেল ইন্স্যুরেন্স। 

১০. ঠিক করে নিন যেভাবে সময় কাটাতে চান

প্রথম বিদেশ যাত্রা হিসেবে আপনার থাকতেই পারে একটি বাকেট লিস্ট অথবা নাও থাকতে পারে। ঘুরতে গিয়ে আপনি যেভাবে সময় কাটাতে চান আগে থেকেই ঠিক করে রাখতে পারেন। এতে আপনার খরচ হিসাব করতে, রিজার্ভেশন করতে কিছুটা সুবিধা হবে। যদি কোনো আ্যক্টিভিটি মিস হয়ে যায় থলে সেটাও আপনার পরিকল্পনায় যোগ করে নিতে পারেন।  

১১. লোকাল ট্রান্সপোর্টেশন সম্পর্কে জানুন

ঘুরতে গিয়ে আপনি নিশ্চয়ই চাইবেন যাতে আপনার যাতায়াত খরচ কিছুটা বেচে যায়। এর জন্য আপনাকে লোকাল ট্রান্সপোর্টেশন সম্পর্কে রাখতে হবে পরিষ্কার ধারনা। বাস, ট্রেন, ট্রাম, মেট্রো, ট্যাক্সি কিংবা অন্য কোন উপায়ে আপনার যাতায়াত করা সহজ হবে তা আপনাকে আগেই জানতে হবে। এতে করে আপনি অনাবশ্যক বাড়তি খরচ কিছুটা কমিয়ে আনতে পারবেন।

১২. আপনার ব্যাংক, আ্যম্বেসি এবং পরিবার পরিজনকে জানান ভ্রমণের ব্যাপারে

ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডের অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে আপনার ব্যাংককে আপনার বিদেশ ভ্রমণের ব্যাপারে আগে থেকেই জানিয়ে দিন। সেই সাথে আপনার দেশের আ্যম্বাসিকে এবং আপনার পরিবারের সদস্যদের জানিয়ে দিন আপনি ভ্রমণে বেড়িয়েছেন যাতে যেকোনো বিপদে আপনি সহযোগিতা পেতে পারেন। 

১৩. নিতে পারেন ড্রাইভারস লাইসেন্স

আপনি যদি নিজেই ঘুরে দেখতে চান পুরো শহর তবে একটি গাড়ি রেন্ট করতে পারেন। এর জন্য আপনার ড্রাইভারস লাইসেন্স প্রয়োজন। তাই সঙ্গে রাখতে পারেন আপনার লাইসেন্সটি। 

উপরের বিষয়গুলো খেয়াল রাখলে আর প্রয়োজনীয় জিনিসগুলো কাছে রাখলে আপনার ভ্রমণ অনেকটাই আরামদায়ক হয়ে যাবে। 

১৪. সতর্কতা অবলম্বন

  • প্রথম বিদেশ ভ্রমণকারী হিসেবে আপনার কিছু সতর্কতা অবলম্বন করা উচিৎ। এর মধ্যে প্রথমেই আসছে আপনার নিরাপত্তার বিষয়টি। আপনি যেখানেই থাকুন না কেন আপনার নিরাপত্তা হবে আপনার সর্বোচ্চ প্রাধান্য। তাই এমন জায়গা পরিহার করুন যা জনমানবহীন, অথবা যাতায়াতের সুবিধা নেই।
  • একজন নির্ভর‍যোগ্য মানুষ যার সাথে আপনি নিয়মিত যোগাযোগ রাখতে পারেন, তার সাথে যুক্ত থাকুন। আপনার ফোনে লোকাল সিম বা ইন্টারন্যাশনাল রোমিং চালু করে নিন। 
  • স্থানীয় সংস্কৃতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকুন। তাদের সংস্কৃতিকে উপভোগ করুন। তাদের সংস্কৃতকে ছোট করে দেখা থেকে বিরত থাকুন। দেখবেন তারাও আপনাকে নিজেদের সংস্কৃতির সাথে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছে। দর্শনীয় স্থান কিংবা ধর্মীয় উপাকনালয়গুলোতে নম্র ও শ্রদ্ধাশীল আচরণ করুন। 

প্রথমবার বিদেশ ভ্রমণ নিঃসন্দেহে একটি নতুন অভিজ্ঞতা। আপনি নিজেকে এমন সব পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়তো পাবেন যা আপনি কখনো কল্পনাও করেননি। তাই যেকোনো পরিস্থিতির জন্য নিজেকে প্রস্তুত রাখুন। মনোবল অটুট রাখুন। প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করুন। আপনার ভ্রমণের প্রতিটি মুহূর্তকে উপভোগ করার চেষ্টা করুন। 

Leave a Comment

Item added to cart.
0 items - $0.00