98 Flavor Street, Boston, 02118

Open daily 10:00 am to 11:30 pm

কানাডা ভ্রমণের বাজেট পরিকল্পনা: জেনে নিন টাকা খরচের বিশদ তথ্য

Blog

আপনি কি গ্রেট হোয়াইট নর্থ দেখতে চান? কিংবা পাথুরে পাহাড় বা লেক? কানাডাকে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি বলা হলে এতোটুকু বাড়িয়ে বলা হবেনা। এখানে রয়েছে মাঠের পর মাঠ সবুযে ঢাকা জমি, গগনভুম্বী একেকটি পাহাড়, নির্মল পানির জলপ্রপাত। সেই সাথে রয়েছে জাঁকজমক শহুরে জীবন। 

আর এই সবকিছুকে উপেক্ষা করে, আপনি যদি হন একজন হাইকিং, ক্যাম্পিং, ফিশিং, অথবা স্কিইং প্রেমিক, তাহলেও কানাডা হতে পারে আপনার ভ্রমন উপভোগের এক অনন্য গন্তব্য । এই ব্লগে আপনি জানতে পারবেন কানাডা ভ্রমণের বাজেট পরিকল্পনার আদ্যোপান্ত, থাকা খাওয়ার খরচ, আ্যক্টিভিটিসের খরচ, আর কিছু টিপস যাতে আপনি ভ্রমণের সময় কিছু টাকা বাঁচাতে পারেন।

১. থাকা-খাওয়া

আপনি যদি মিড বাজেট ট্যুর দিতে চান তবে প্রতি রাত ১০০-২০০ কানাডিয়ান ডলারের মধ্যে ভালো হোটেল পেয়ে যাবেন একদম কানাডার প্রধান শহরগুলোতে। আর যদি আপনি আ্যাডভেঞ্চার প্রিয় হন, তাহলে ক্যাম্পিং হতে পারে আপনার জন্য একটি উত্তম অপশন, যার জন্য আপনাকে গুনতে হবে  মাত্র ২০ ডলারের মতো। এছাড়াও আপনার হাতে আছে হোস্টেলের অপশন। প্রায় ৬০-৭০ ডলার প্রতি রাত হিসেবে আপনি যেকোনো একটি হোস্টেলে প্রাইভেট রুম বুকিং করতে পারেন।

২. যাতায়াত

কানাডা ঘুরে দেখার জন্য যাতায়াতের সবচেয়ে ভালো উপায় হলো কার রেন্টাল। কার রেন্টালের মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই কানাডায় রোড ট্রিপ দিতে পারেন। ভ্যানকুভার থেকে টরোন্টো ট্রিপ দেওয়ার জন্য দিন প্রতি প্রায় ৬৮ ডলারের মতো খরচ হতে পারে। কার রেন্টাল নিতে না চাইলে আপনার জন্য রয়েছে আরো বাজেট ফ্রেন্ডলি অপশন। বাসে যাতায়াতের ক্ষেত্রে টরোন্টো থেকে মন্ট্রিয়াল যেতে খরচ পড়বে প্রায় ৬০ ডলারের মতো। এছাড়া আপনার জন্য রয়েছে ট্রেন আর বিমানের অপশন। যদিও এই অপশন দুটি কিছুটা ব্যয়বহুল। 

৩. খাওয়া-দাওয়া

আপনার পছন্দের সব খাবার একসাথে পেয়ে যাবেন কানাডায়। নাম বলুন আর আপনার পছন্দের খাবার চলে আসবে আপনার সামনে। এছাড়া স্থানীয় খাবার তো আছেই। যদিও আপনি খুব বেশি কানাডিয়ান খাবার পাবেন না তবে কানাডায় গিয়ে আপনি যদি পুটিন আর বেভারটেইল না উপভোগ করেন তাহলে হয়তো আপনি অনেক বড় কিছু মিস করবেন। বেভারটেইল হলো এক ধরনের পেস্ট্রি জাতীয় খাবার। 

আপনার কানাডা ভ্রমণ অসম্পূর্ণ থেকে যাবে আপনি যদি টিম হরটোনের কফি ট্রাই না করেন। এই কফি খুবই বাজেট ফ্রেন্ডলি। মাত্র ৩ ডলার খরচ করে আপনি একটি কফি আর বেগেল(রুটি জাতীয় খাবার) পেয়ে যাবেন।

ফাস্ট ফুড ধরনের খাবার খেতে আপনার প্রায় ৫-১০ ডলার মতো খরচ হবে। আর আপনি যদি৷ ক্যাক্টাস ক্লাব বা সুইস ক্লাবের মতো রেস্টুরেন্টে খেতে চান তাহলে আপনাকে জনপ্রতি ১৫-৩০ ডলার পর্যন্ত গুনতে হতে পারে। 

৪. দর্শনীয় স্থান ভ্রমন 

ঘুরে বেড়ানোর জন্য আর আ্যক্টিভিটিসের জন্য কানাডা ভ্রমণ সবচেয়ে বেশি সাশ্রয়ী। কেননা কানাডা হলো প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের ভান্ডার। আর এখানেই গাড়ি করে কানাডা ভ্রমণের সবচেয়ে বড় সুবিধা। শুধুমাত্র গাড়ি চালিয়ে কানাডার বিভিন্ন শহরগুলো দেখা, এর প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করেই আপনি পেয়ে জেতে পারেন আপনার ভ্রমনের সার্থকতা।

আর বিশ্ব বিখ্যাত নায়াগ্রা ফলস তো আছেই। নায়াগ্রা ফলসের পাশেই রয়েছে কানাডিয়ান মিউজিয়াম অব হিউমান রাইটস,  যেখানে গেলে আপনি দেখতে পাবেন নায়াগ্রা ফলসের পাশ দিয়ে ঘুরে বেড়ানো কিছু তিমি মাছ। 

আপনি যদি প্রকৃতিপ্রেমী হোন তবে পশ্চিম কানাডা আপনার ঘুরাঘুরির জন্য সবচেয়ে ভালো। আর আপনি যদি ইতিহাসপ্রেমীদের জন্য মধ্য আর পূর্ব কানাডায় রয়েছে বিভিন্ন ঐতিহাসিক স্থান। এছাড়াও আরো কিছু জায়গা আপনি গুরে দেখতে পারেন। যেমন, 

  • সি এন টাওয়ার (টরোন্টো): জনপ্রতি ৩০ ডলার খরচ হবে। 
  • পার্লামেন্ট হিল টাওয়ার ট্যুর(অটোয়া): ফ্রি
  • ন্যাশনাল গ্যালারী অব কানাডা(অটোয়া): জনপ্রতি ১২ ডলার আর বৃহস্পতিবার বিকাল থেকে প্রবেশ ফ্রি
  • বানফ গনডোলা ( বানফ) : জনপ্রতি ২৮ ডলার
  • তিমি দর্শন ( ব্যানকুভার): জনপ্রতি ১১৯ ডলার
  • আ্যন অব গ্রিন গ্যবেলস হেরিটেজ প্লেস: জনপ্রতি ৬ ডলার 
  • নায়াগ্রা ফলস: ফ্রি

এই জায়গাগুলো দেখার সময় আপনি সুবিধার জন্য ট্যুর গাইডও পেয়ে যাবেন। তবে এর জন্য আপনাকে বাড়তি কিছু ডলার গুনতে হবে। 

৫. ট্রাভেল ইন্স্যুরেন্স

ভ্রমণের সময় যেকোনো ধরনের প্রতিকূল পরিস্থিতির হাত থেকে বাঁচার জন্য ট্রাভেল ইন্স্যুরেন্স হতে পারে আপনার একমাত্র ভরসা ৷ এমন ঘটনা প্রায়ই ঘটতে দেখা যায় যে কেউ ভ্রমণে গিয়ে কোনো একটা দুর্ঘটনায় পরে প্রায় নিঃস্ব হয়ে পথে বসতে চলেছেন। এমন অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিততে না পরতে চাইলে করে রাখতে পারেন একটি ট্রাভেল ইন্স্যুরেন্স।

গড়পরতা হিসাব করলে দিন প্রতি কানাডায় বাজেট ট্যুর প্ল্যান করলে আপনার বিভিন্ন খাতে খরচ হতে পারে-

থাকা বাবদ: ৮০ ডলার প্রতিদিন

যাতায়াত বাবদ: ৬৯ ডলার প্রতিদিন

খাওয়া দাওয়া বাবদ: ২৫ ডলার প্রতিদিন

ঘুরাঘুরি বাবদ: ০ ডলার প্রতদিন!

তো বাজটে ট্যুর প্ল্যান করলে দিনপ্রতি প্রায় ১৭৩ ডলার খরচ হতে পারে। 

১ কানাডিয়ান ডলার সমান ৮২ টাকা। অর্থাৎ, কানাডা ভ্রমণে দিনপ্রতি আপনার প্রায় ১৪ হাজার টাকা খরচ হবে। অন্যান্য দেশের তুলনায় কানাডা ভ্রমণের খরচ তুলনামূলক বেশি। দিনে ১৪ হাজার টাকা হিসাবে সপ্তাহে প্রায় ১ লক্ষ টাকা আর ১৫ দিনে প্রায় ২ লক্ষ দশ হাজারের মতো খরচ হবে একজনের। 

৬. খরচ কমানোর জন্য কিছু টিপস

কিছু টিপস ফলো করলেই আপনি এই খরচ আরো কিছু কমিয়ে আনতে পারবেন। যেমন, আপনি হোটেলের পরিবর্তে হাউজসেটিং এ থাকতে পারেন। হাউজসেটিং হলোএমন এক ব্যবস্থা যেখানে থাকার জায়গার বিনিময়ে  আপনাকে ঐ বাড়ির কিছু ছোটো খাটো কাজ করে দিতে হবে। এতে প্রায় আপনার পুরো থাকার খরচ বেঁচে যাবে। 

বাইরে খাওয়ার বদলে আপনি যেখানে থাকছেন সেখানে যদি রান্না করার ব্যবস্থা থাকে তবে নিজের খাবার নিজে তৈরি করে খাওয়ার খরব প্রায় অর্ধেক কমিয়ে আনতে পারেন আপনি। 

যাতায়াতের ক্ষেত্রে পাব্লিক বাস ব্যবহার করতে পারেন৷ এতে কিছু সাশ্রয় হবে। 

এশিয়ার বিভিন্ন দেশ ভ্রমণের তুলনায় কানাডা ভ্রমণের খরচ কিছু বেশি। এছাড়াও আপনার ভ্রমণের ধরন, ভ্রমণকাল আর বছরের কোন সময়ে আপনি ভ্রমণ করছেন তার উপর নির্ভর করে আপনার বাজেট। ভ্রমণের খরচ কিছুটা বেশি হলেও কিছু টিপস ফলো করলে আপনি এই খরচ অনেকটা কমিয়ে আনতে পারেন। যেমন, অফ সিজনে যদি আপনি ভ্রমণ করেন, হাউজসেটিং কিংবা হোস্টেলে থাকলে, নিজে রান্না করলে এবং ফ্রি আ্যক্টিভিটিসগুলো করলে আপনি খরচ অনেক কমিয়ে আনতে পারবেন। 

Leave a Comment

Item added to cart.
0 items - $0.00